গণমাধ্যমের ভুয়া ওয়েবসাইট খুলে অপপ্রচার, গ্রেফতার ২

0
37

বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক পত্রিকার ওয়েবসাইটের আদলে নকল ওয়েবসাইট তৈরি করে মিথ্যা ও বানোয়াট সংবাদ প্রচারের অভিযোগে দুজনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। তারা হলেন কামাল হোসেন ওরফে জি এম কামাল ও আল আমিন। বুধবার রাতে ঢাকার মোহাম্মদপুর ও গাজীপুরের টঙ্গী থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে ল্যাপটপ ও মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়। র‌্যাব বলছে, ল্যাপটপে জাতীয় পত্রিকার ওয়েবসাইটের আদলে নকল ওয়েবসাইট তৈরির প্রমাণ পাওয়া গেছে। গতকাল র‌্যাব-২-এর কোম্পানি কমান্ডার মো. মহিউদ্দিন ফারুকী জানান, জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে বাংলাদেশে বিবিসি বাংলা, প্রথম আলো, আমার দেশ, নয়াদিগন্তের মতো প্রতিষ্ঠানের এ রকম ভুয়া ওয়েবসাইট তৈরি করা হয়েছে।

এসব সাইটের মাধ্যমে পাঠকদের বিভ্রান্ত করে ভুয়া খবর ছড়ানো হচ্ছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও দেশি-বিদেশি বেশ কয়েকটি সংবাদমাধ্যমের পেজ তৈরি করে ভুয়া খবর প্রকাশ করছে এই চক্রটি।

১৭ নভেম্বর এ বিষয়ে অভিযোগ পেয়ে তদন্ত শুরু করে র‌্যাব। অনুসন্ধানে জানা যায়, কিছু কুচক্রী মহল বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতাকে প্রশ্নবিদ্ধ করা ও রাষ্ট্রীয় স্পর্শকাতর বিষয় নিয়ে প্রতিবেদন প্রচার, আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে তথ্যপ্রযুক্তির অপব্যবহার করে ভুয়া ওয়েবসাইট তৈরি করে সরকারবিরোধী প্রচার-প্রচারণা, বিভিন্ন জাতীয় নেতাদের বিরুদ্ধে ব্যক্তিগত বিষোদ্গারের মাধ্যম হিসেবে বিভিন্ন দেশি ও বিদেশি সংবাদমাধ্যমের অনলাইন সংস্করণকে বেছে নিয়েছে। যা মূলত সাইবার ক্রাইম। এ বিষয়ে অভিযান শুরুর পর র?্যাব-২ বিভিন্ন ওয়েবসাইটের নকল সাইট তৈরির অপরাধে কামাল ও আল আমিনকে গ্রেফতার করা হয়।

র‌্যাব সূত্রে জানা গেছে, আল আমিন ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি থেকে বিএসসি শেষ করেছে এবং কামাল কুমিল্লার লাকসামের নওয়াব ফয়েজুন্নেছা বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে বিবিএ তৃতীয় বর্ষে পড়ছে। পড়ালেখার পাশাপাশি তারা অনলাইনে আউটসোর্সিং, ডোমেইন-হোস্টিং সেল, ওয়েব ডিজাইন ও ডোমেইন রিসেলার, গুগল অ্যাডসেন্স, সোশ্যাল মার্কেটিং এবং বিভিন্ন করপোরেট প্রতিষ্ঠানে টেকনিক্যাল সাপোর্ট দিয়ে থাকে। এরা সরকারবিরোধী অপপ্রচার ছড়ানোর কাজে বিভিন্ন জাতীয় পত্রিকার কপি হুবহু ওয়েব হোস্টিং করে থাকেন। নকল ওয়েবসাইটের মাধ্যমে অনলাইন পত্রিকা প্রকাশিত হলে বিএনপি ও জামায়াত বা সরকারবিরোধী সমর্থকেরা বেশি লাইক ও শেয়ার দেবে এবং তাতে করে ফেসবুক থেকে বেশি টাকা আয় করা সম্ভব। কোনো পোস্ট এক হাজারের অধিক ভিউ, লাইক বা শেয়ার হলে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ ২৫০ থেকে ৩০০ টাকা দেয়।http://www.bd-pratidin.com/city/2018/11/30/379918

একটি মন্তব্য করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন
আপনার নাম লিখুন