বারবেলা পত্রিকা ডেস্ক:

মো.ইউসুফ আলী বাচ্চু, জান্নাতুল ফেরদৌসী : যদি আমরা নিয়ম-শৃঙ্খলা মেনে চলি তবে এবারের ঈদযাত্রায় যানজট হবে না। সীমাবদ্ধতার পরও আশা করছি বড় কোনো সমস্যা হবে না। শনিবার রাজধানীর তেজগাঁওয়ে এলেনবাড়ী বিআরটিএ সদর কার্যালয়ে সভা শেষে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি। তিনি বলেন, আমরা যদি সবাই মিলে নিয়ম মেনে সড়ক ব্যবহার করি তাহলে ঈদযাত্রা যানজট মুক্ত হবে। ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে যান-চলাচল ধীর গতি হতে পারে তবে থমকে যাবে না। যানবাহন বিকল হতে পারে। রাস্তায় গাড়ি চলন্ত অবস্থায় যাতে চালকরা মোবাইল ফোনে কথা না বলে। মোবাইল ফোনে কথার বলতে গিয়ে যাতে দুর্ঘটনা না ঘটে সেদিকে পরিবহন মালিকপক্ষকে খেয়াল রাখতে হবে। সড়কে যানবাহন বিকল হয়ে যেন চলাচলে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করতে না পারে সেজন্য গাড়ির ফিটনেস পরীক্ষা করে নিতে হবে। এজন্য কার্যকরী ভূমিকা পালন করবে বিআরটিএ। সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, যদি আমরা নিয়ম-শৃঙ্খলা মেনে চলি তবে এবারের ঈদযাত্রায় যানজট হবে না। সীমাবদ্ধতার পরও আশা করছি বড় কোনো সমস্যা হবে না। ওবায়দুল কাদের বলেন, গতকাল গভীর রাতে নিকুঞ্জ এলাকায় বিআরটিসির বাস ডিপোতে আগুন লেগে ১১টি বাস ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এরমধ্যে পাঁচটি দ্বিতল বাস এবং ছয়টি একতলা বাস। নাশকতা না অন্য কোণ কারণে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে তাৎক্ষণিকভাবে বিষয়টি সম্পর্কে কেউ জানাতে পারেনি। ঘটনার পরপরই সেখানে পরিদর্শনে গিয়ে বিআরটিসি চেয়ারম্যান ফরিদ আহমেদ আগুন লাগার বিষয়টি খতিয়ে দেখতে ফায়ার সার্ভিসসহ সংশ্লিষ্ট যারা আছেন তাদের নিয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করার কথা জানান। এ ছাড়া অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার পেছনে কোনো গাফিলতি আছে কি না, তা দেখা হবে বলেও জানান তিনি। ঈদের আগে আগুনে এতগুলো বাস পুড়ে গেলেও যাত্রী পরিবহনে সমস্যা হবে না বলে জানিয়েছিলেন বিআরটিসির চেয়ারম্যান। সেতু মন্ত্রী আরও বলেন, আমরা ১০ জন ভিআইপির জন্য ১০ লক্ষ মানুষ কষ্ট পাবে তা আমি চাই না সেক্ষেত্রে পুলিশের ভুমিকা থাকতে হবে আমাদের ও মানষিকতার পরিবর্তন ঘটাটে হবে। একজন ভিআইপির জন্য অনেক লম্বা যানজট হতে পারে শুধু নিয়ম ভঙ্গের কারণে।

এক প্রশ্নের জবাবে সড়ক পড়িবহন ফেডারেশনের মহাসচিব এনা পরিবহনের মালিক খন্দকার এনায়ে তুল্লাহ বলেন, আমরা ৫শ’ ড্রাইভারদের নিজস্ব অর্থায়নে প্রশিক্ষণ দিয়েছি ৩ দিন থাকা খাওয়াসহ এই পশিক্ষণের ব্যবস্থা। আমরা প্রতি তিন মাস পর পর সচেতনতা বাড়ানোর মিটিং করে থাকি।আমাদের প্রতিটি গাড়িতে সর্বোচ্চ গতিসীমা ৮০ তে সিল করা থাকে অনেক সময় ড্রাইভাররা সে সিল ভেঙ্গে তার পর গাড়ি চালায়।-আমাদের সময়.কম

একটি মন্তব্য করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন
আপনার নাম লিখুন